"তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বই" বিভাগে করেছেন
অনলাইন সিকিউরিটি বলতে কি বোঝায়?

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন

অনলাইনের নিরাপত্তাই হল অনলাইন সিকিউরিটি।

অনলাইনে secured থাকার কিছু উপায়

১. মোবাইল নাম্বার দিয়ে অবস্থান শনাক্ত (track mobile number) : বাংলাদেশে মোবাইল নাম্বার দিয়ে অবস্থান শনাক্ত করা খুব কঠিন। এই ব্যাপারে android apps অনেক আছে কিন্তু সেগুলো বাংলাদেশের জন্য প্রযোজ্য না। মোবাইলের আইপি বের করে তারপর অবস্থান শনাক্ত করা যায়। কিন্তু টিএন্ডটি নাম্বার দিয়ে আপনার বাসার ঠিকানা বের করে ফেলা যাবে। তাই কাউকে টিএন্ডটি নাম্বার দাওয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকবেন।
২. IP (internet protocol) address দিয়ে অবস্থান শনাক্ত (trace ip address) : IP address দিয়ে খুব সহজেই আপনি কোথায় আছেন তা জানা যায়। তবে আইপি বের করা কিছুটা কঠিন। আপনাকে দিয়ে কোন লিংকে ক্লিক করিয়ে আইপি বের করে ফেলা সম্ভব। মোবাইল,কম্পিউটার সব কিছুর আইপি থাকে এবং আইপি বের করে অবস্থান জানা যায়। তবে মোবাইলে সিম দিয়ে ইন্টারনেট ব্যবহার করলে আইপি দিয়ে সঠিক অবস্থান অনেক সময় বের করা যায় না। এর থেকে সুরক্ষিত থাকার জন্য অনলাইনে কারো কোন লিংকে ক্লিক করবেন না। vpn (virtual private network) software ব্যবহার করলে আপনার আইপি change হয়ে যাবে এবং আপনার আইপি হ্যাক করলেও আপনি সুরক্ষিত থাকবেন।

৩. লিংকে ক্লিক করা (trap) : কারো কোন অপরিচিত লিংকে ক্লিক করলে আপনার আইপি হ্যাক করার মাধ্যমে আপনার অবস্থান শনাক্ত করা যাবে, আইপি দিয়ে আপনার ইন্টারনেট অচল করে দাওয়া যাবে, আপনার মোবাইল/কম্পিউটারে ভাইরাস ঢুকিয়ে দাওয়া যাবে, আপনার ডিভাইসের সব তথ্য চুরি করা যাবে, আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক করা যাবে। আরো অনেক কিছু করা যায় শুধু একটি লিংকে ক্লিক করিয়ে। তাই অনলাইনে সুরক্ষিত থাকতে চাইলে কারো দাওয়া কোন লিংকে ক্লিক করবেন না। কোন লিংকে ক্লিক করা খুব প্রয়োজন হলে http://www.whois.com ওয়েবসাইটে যেয়ে লিংকটি search করবেন। লিংকের ব্যাপারে details info পাবেন। সেখান থেকে বুঝতে পারবেন লিংকটি trusted কিনা।
৪. মোবাইল নাম্বার (misscall bombing) : আপনার মোবাইল নাম্বার দিয়েই আপনার মোবাইল নষ্ট করে ফেলা যাবে। এটি এভাবে করা হয়: মোবাইল নাম্বারে প্রতি সেকেন্ডে মিসকল দাওয়া হবে। ফলে এক ঘন্টায় প্রায় ৩০০০-৩৫০০ মিসকল আপনার নাম্বারে আসবে। এতে মোবাইলের ক্ষতি হবে। মোবাইল vibrate করা থাকলে মোবাইল নষ্ট হয়ে যেতে পারে। এর থেকে সুরক্ষিত থাকতে হলে যখন এতো তারাতারি মিসকল আসতে থাকবে তখন মোবাইল বন্ধ করে দিবেন। মিসকল ধরার চেষ্টা করে লাভ নেই। খুব কম সময় মিসকল হবে এবং ধরার আগেই কেটে যাবে।

৫. SMS Bombing: মিসকলের মতোই খুব কম সময় প্রচুর SMS আপনার মোবাইলে পাঠিয়ে মোবাইল নষ্ট করে দাওয়া যাবে। মোবাইল বন্ধ করে দিয়ে এর থেকে সুরক্ষিত থাকতে পারবেন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি উত্তর
2 জন সক্রিয় সদস্য
0 জন নিবন্ধিত সদস্য 2 জন অতিথি
আজকে পরিদর্শন : 2040
...