0 টি ভোট
"ইলেক্ট্রিক্যাল ও ইলেক্ট্রনিক্স" বিভাগে করেছেন (542 পয়েন্ট)
মাইক্রোপ্রসেসরে আলাদাভাবে রম র্যাম দেওয়া লাগলেও কেন ব্যবহার করা হয়?

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (3.1k পয়েন্ট)
মাইক্রোকন্ট্রোলার বিশেষ কোন একটি কাজকে নির্বাহ করার জন্য ব্যবহার হয়। যেমন রেডিও বা এমপি৩ প্লেয়ার। এখানে শুধু অডিওকে এমপ্লিফাই করা হয়।

এ ধরনের একক নির্দিষ্ট কাজে মাইক্রোকন্ট্রোলার ডিজাইন করা। এজন্য এটি দ্রুত কাজ করে। অতিরিক্ত অংশ যুক্ত করা লাগেনা, অল্প পাওয়ারে চলে। তাই সুবিধা বেশি ধরা হয়।

কিন্তু মাইক্রোপ্রসেসর কোন একটি কাজ করার জন্য ডিজাইন করা হয়নি। এটি এমনকি মাইক্রোপ্রসেসর ইউজারের কোন কাজ করার জন্য তৈরি করা হয়নি।

মাইক্রোপ্রসেসর তৈরি হয়েছে ইউজারের বিভিন্ন কাজকে যখন যেটা প্রয়োজন তখন সেটা নির্বাহ করার জন্য।

ধরি ইউজার শুধু গান শুনতে চান। তাহলে মাইক্রোকন্ট্রোলার সুবিধার।

কিন্তু ধরি এই মুহুর্তে ইউজার গান শোনা, বা ভিডিও দেখা, লেখা লেখি, হিসাব নিকাশ ইত্যাদি কাজ আজকে করতে চান কিন্তু কিছুক্ষন পর পর বা গান শুনতে শুনতে অন্য একটি। তখন মাইক্রোপ্রসেসর উপযুক্ত কারন মাইক্রোপ্রসেসর গানের ডিভাইসকে নির্বাহ করতে পারার সাথে সাথে আরও একটি কাজ করতে পারে।

সবচেয়ে বড় ব্যাপার হল, ধরি আগামীকাল ইউজার এমন কিছু কাজ করার সুবিধা রাখতে চান যে কাজটি আজ তৈরিই হয়নি। আগামীকাল হতে পারে।

এখানে মাইক্রোপ্রসেসর সুবিধা বেশি। কারন এটি নির্দিষ্ট কোন কাজের জন্য নয়। এটি মূলত কোন কাজের নির্দেশ পালন করে তা ইউজারের চাহিদামত দিতে পারার ব্যবস্থা।

ধরুন চাউলের দোকানে গেলেন, সেখানে চাউল পাবেন। মুদি দোকানে গেলেন সেখানে তেল ডাল পেলেন। এগুলো একক। কিন্তু যদি জাহাজে যান। তাহলে নানা রকম পাবেন। জাহাজ একটা মালের জন্য নয়, সব পরিবহনের জন্য। 

তেমনি কম্পিউটারে নানা মাইক্রোকন্ট্রোলার থাকে। মাইক্রোপ্রসেসর তাদের কাজকে ভিন্ন ভিন্ন ভাবে চালু করে ইউজারকে দিতে পারে।

এখানে প্রোসেসর কিন্তু কোন কাজ করছেনা। সে যে কাজ করছে তা হল ভিন্ন ভিন্ন মাইক্রোকন্ট্রোলার এর কাজকে ধারন করে রেখেছে। ইউজারের নির্দেশ অনুযায়ী তাদের পরিচালনা করছে।

যখন পিসিতে গান শোনেন তখন কিন্তু প্রসেসর গানকে এম্পলিফাই করেনা। প্রসেসর মুলত গানের ফরম্যাট, কোডার ডিকোডার চিহ্নিত করে মাদারবোর্ড এ থাকা অডিও চিপনামের মাইক্রোকন্ট্রোলারকে নির্দেশ দেয় যে এই কাজটা আপনার, আপনি চালু করুন। তখন অডিও মাইক্রোকন্ট্রোলার গান শোনানো শুরু করে।

মাইক্রোপ্রসেসর এ আলাদা র্যাম রম দরকার।

ধরুন আমি আপনার কাছে একটা ডিম ভাজা খেতে চাই, ডিমটি আমি কিনে এনে দিলাম। কিন্তু ডিমকে ভাজতে হলে আপনাকে একটি টেবিলে তেল লবন, ঝাল, পেয়াজ, আগুন জালানোর ম্যাচ ইত্যাদি জড়ো করতে হবে। এটি মেমরি ধরুন। তারপর কড়াইতে রেখে ভাজতে হবে। কড়াই র্যাম। সেখানে রেখে প্রসেস বা ভাজা করছেন আপনি তাই আপনি প্রসেসর।

কাজেই ভিন্ন ভিন্ন কাজের জন্য উপাদান গুলো সংগ্রহ করে রাখার জন্য বিভিন্ন মেমরি। এটি শুধু হার্ডডিস্ক নয়, ক্যাশ মেমরি, লুপ মেমরি ইত্যাদি হতে পারে। আর র্যামে রেখেই সব করা হয়। তাই র্যাম আবশ্যক।

কাজেই যে সকল স্থানে নির্দিষ্ট কাজ নয় বরং আজ পর্যন্ত থাকা বিভিন্ন কাজের যখন যেটা দরকার তখন সেটা করতে, আগামীতে কোন অজানা কাজ বা সমস্যাকে সমাধান করতে মাইক্রোপ্রসেসর ব্যবহার হয়। 
করেছেন (3.6k পয়েন্ট)
আর একটি বিশেষ কথা রম। আসলে আমরা বর্তমানে যে রম বুঝি তা প্রকৃত রম নয়। ROM =Read Only Memory বলতে যা বোঝায় তা হল ছোট একটি মেমোরি চিপ যাতে কম্পিউটারের ফার্মওয়ার, বাইনারী কোড, বায়োস ইত্যাদি জমা থাকে।

এই রম ইউজার কোন মতেই ব্যবহার করতে পারেনা। ইউজার এটি দেখতেই পারেনা বললেই চলে।

এন্ড্রয়েড ফোনের এই যুগে রম বলতে অধিকাংশ মানুষ ফোন মেমরির মত এক প্রকার মেমরিকে বোঝে। এটি ঐ রম ( read only memory) নয়।

এন্ড্রয়েড ফোনের যে রম নিয়ে আমাদের এত মাতামাতি সে রম হচ্ছে এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ফাইল গুলো কাজ করার জন্য বিভিন্ন মেমরি ক্যাশ করতে যে পরিমান যায়গা গ্রহন করে তার মোট পরিমান। ৮ জিবি রম বলতে বোঝায়, ঐ অপারেটিং সিস্টেমটি ইন্সটল করলে তা এবং তাতে থাকা সফটওয়্যার গুলো কাজ করতে ৮ জিবি যায়গা দখল করবে। 

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
0 টি উত্তর
0 টি ভোট
0 টি উত্তর
5 Online Users
0 Member 5 Guest
Today Visits : 3077
Yesterday Visits : 2293
Total Visits : 5080794
...