0 টি ভোট
"উদ্ভিদ বিজ্ঞান বই" বিভাগে করেছেন (229 পয়েন্ট)
বন্ধ করেছেন
৪ নাম্বারের জন্য।।৮ম শ্রেণী
বন্ধ

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (603 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর
পুষ্পের ভিক্তিতে উদ্ভিদদের দুই ভাগে ভাগ করা হয় । যথা অপুষ্পক ও সপুষ্পক উদ্ভিদ।

সপুষ্পক উদ্ভিদঃ যেসকল উদ্ভিদের ফুল ফোটে এবং স্বাভাবিক জনন ফুলের মাধ্যমে হয় তাদেরকে সপুষ্পক উদ্ভিদ বলে।

সপুষ্পক উদ্ভিদের জননাঙ্গঃ সপুষ্পক উদ্ভিদ পুষ্প নামক বিশেষ জননাঙ্গ ব্যবহার করে স্বাভাবিক যৌন জনন সম্পর্ণ করে থাকে। এক্ষেত্রে উদ্ভিদকে স্ত্রী ও পুরুষ বা ফুলকে স্ত্রীফুল বা পুং ফুল হিসাবে বিপরীত লিঙ্গ নির্ধারিত হয়। সপুষ্পক উদ্ভিদের স্ত্রীফুলে স্ত্রী জননাঙ্গ যেমন ডিম্বাশয় ও ডিম্বক সৃষ্টি হয়। এই ডিম্বাশয় বা ডিম্বকের উপর গর্ভদন্ড  থাকে যার অগ্রপ্রান্তে গর্ভমূন্ড অবস্থিত। এছাড়া অন্যন্য ফুলের উপাঙ্গ থাকে। ডিম্বক হচ্ছে বিশেষ জনন কোষ যা জনন মাতৃ নিউসেলাস কোষ মিয়োসিস প্রক্রিয়ায় বিভাজিত হয় মোট ৮ নিউক্লিয়াস যুক্ত হয়ে একটি থলিকাকৃতি গঠন তৈরি করে । একে ডিম্বক স্ত্রীরেণু বা স্ত্রীজনন কোষ বলে।

অন্য দিকে পুং ফুলে পুং জনন মাতৃ নিউসেলাস কোষ মিয়োসিস প্রক্রিয়ায় বিভক্ত হয়ে একটি একটি করে বহু নিউক্লিয়াস সৃষ্টি করে, এই নিউক্লিয়াস ক্ষুদ্রাকৃতি এবং একে পুং রেণু বা পরাগরেণু বলে। এটি পুং জনন কোষ। বিভিন্ন বাহকের মাধ্যমে বাহিত হয়ে অথবা যেকোন ভাবে এই পরাগরেণু বা পুং জনন কোষ স্ত্রীজনন কোষ তথা স্ত্রীফুলরে গর্ভমুন্ডে পতিত হলে হলে, বিশেষ প্রক্রিয়ায় পুং জনন কোষ এক প্রকার অঙকুরিত নিয়মে জনন নালী সৃষ্টি করে যা গর্ভদন্ডের ভেতর দিয়া ডিম্বক নিউক্লিয়াসে যেয়ে পুং নিউক্লিয়াসকে মুক্ত করে। এই প্রক্রিয়াকে নিষেক বলে। ফলে নিষেক সম্পর্ণ হলে ভ্রূণ সৃষ্টি করে ডিম্বাশয় ফলে বা ডিম্বক বীজে পরিণত করে। এই বীজ পরিপক্ক হয়ে উপযুক্ত পরিবেশে নতুন ঐ উদ্ভিদের চারার জন্ম দেয়।

এভাবে সপুষ্পক উদ্ভিদ জনন সম্পর্ণ করে তাই বলা যায় সপুষ্পক উদ্ভিদের জনন অঙ্গ হচ্ছে ফুল। এটি স্বাভাবিক জনন প্রক্রিয়া। 

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
1 উত্তর
02 ডিসেম্বর 2020 "উদ্ভিদ বিজ্ঞান বই" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Naeem (542 পয়েন্ট)
0 টি ভোট
0 টি উত্তর
6 Online Users
0 Member 6 Guest
Today Visits : 538
Yesterday Visits : 9402
Total Visits : 5087652
...