প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করুন নিবন্ধন বা রেজিষ্ট্রেশন ছাড়াই
0 টি ভোট
"জীববিজ্ঞান" বিভাগে করেছেন (1.5k পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (3k পয়েন্ট)
নীলাভ সবুজ শৈবালকে সাধারণত সায়ানোব্যাকটেরিয়া বলা হয়ে থাকে। এদের কোষ বিভাজনকে প্রত্যক্ষ কোষ বিভাজন বলা হয়।

কারনঃ-

সায়ানোব্যাকটেরিয়া বা নীলাভ সবুজ শৈবালে এমাইটোসিস কোষ বিভাজন ঘটে। বিভাজনের শুরুতে নিউক্লিয়াসটি ধীরে ধীরে লম্বা হতে থাকে এবং দুই প্রান্ত মোটা ও মাঝখানে সরু হতে থাকে। মাঝের অংশ ক্রমশ আরও সরু হয়। এবং সরু হতে হতে পরস্পর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে দুটি আপত্য নিউক্লিয়াস সৃষ্টি করে। ইতমধ্যে কোষপ্রাচীরের মধ্যভাগ ভিতরের দিকে প্রবেশ করে সাইটোপ্লাজমকেও দুইভাগে বিভক্ত করে ফেলে এবং দুটি আপত্য কোষের সৃষ্টি করে থাকে। এই বিভাজন প্রক্রিয়ায় কোষের নিউকিয়াসটি প্রতক্ষ্যভাবে সরাসরি দুটি অংশে ভাগ হয়ে যায় বলে নীলাভ সবুজ শৈবালের কোষ বিভাজনকে প্রতক্ষ্য কোষ বিভাজন বলা হয়।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
0 টি উত্তর
0 টি ভোট
0 টি উত্তর
0 টি ভোট
0 টি উত্তর
20 ফেব্রুয়ারি "জীববিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন রিপন (1.5k পয়েন্ট)
0 টি ভোট
1 উত্তর
20 ফেব্রুয়ারি "জীববিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন রিপন (1.5k পয়েন্ট)

5 Online Users
0 Member 5 Guest
Today Visits : 2375
Yesterday Visits : 5933
Total Visits : 3700810

বয়স গণনা করুন





     বয়স : 0 বছর     
            0 মাস
            1 দিন
...