এসাইনমেন্ট এর কভার পেজ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

সকল এসাইনমেন্ট এর উত্তর এখানে দেওয়া হবে, সাথে থাকুন

0 টি ভোট
"তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বই" বিভাগে করেছেন (2.9k পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (3.4k পয়েন্ট)
কাজের দিক থেকে এন্ড্রয়েডের র্যাম রোম ও পিসি র্যাম রোম মূলত একই।

তবে ভার্শন, ও স্পিডের দিক থেকে পুরা ভিন্ন। পিসি র্যাম বেশি দ্রুত গতির এবং পিসি র্যামের ফ্রিকোয়েন্সিও অনেক বেশি হয়। তাই পিসি র্যামের বাস স্পিড অনেক বেশি।

অন্য দিকে সাধারণ মানুষের কাছে র্যাম শব্দটি পরিচিত হয়ে উঠেছে এন্ড্রয়েড মোবাইল আসার পর থেকে। এন্ড্রয়েড এর র্যাম কত এই কথাটি বলেনি এমন মানুষ পাওয়া মুশকিল।

আর এই আগ্রহকে পুজি করে কোম্পানিও ঘটা করে সর্বাজ্ঞে র্যামের বর্ণনা দেয়। তবে সে বর্ণনায় যথেষ্ট ফাকি থাকে। প্রচারে শুধু ১জিবি ৪জিবি ৬ জিবি ইত্যাদি ভলিউম সাইজ প্রচার করা হয়। বর্তমানে অনেক কোম্পানি lped3 এ ধরনের বার্তাও প্রচার করে। কিন্তু কোন কোম্পানি র্যামের ফ্রিকোয়েন্সি এবং বাস স্পিড প্রচার করেনা।

ইয়ং জেনারেশন মনে করে র্যাম বেশি হলে ফোনের স্পিড বেশি হবে। রোম বেশি হলে বেশি যায়গা হবে। 

কিন্তু এই ধারনা গুলো বেশির ভাগ ভূল।

একটি র্যাম হতে পারে ৬ জিবি। কিন্তু তার বাসস্পিড কম হলে কখনো ফোনে গতি বাড়বেনা। ফ্রিকোয়েন্সি কম হলে ফাংশন দ্রুত কাজ করবেনা। সাইজ বাড়িয়ে কি করবেন?  র্যামে ফাইল রাখা যায়না। 

আপনি জানেনকি ২ জিবি র্যামে পিসি ভাল চলে। ৪জিবি র্যামে ৬৪বিট ভাল চলে, তবে ২জিবিতেও চলে। 

আর মোবাইলে ৬জিবি না হলে হবেনা। এই গোড়ামী ঠিক নয়।

র্যামে যায়গা প্রয়োজন বড় বড গেম লোড হওয়ার জন্য। কিন্তু কোন গেমের ১ জিবি ২জিবি ইলিমেন্ট র্যামে লোড হয়না। র্যামে লোড হয় সিনক্রোনাসলি। 

পিসি র্যামের চেয়ে মোবাইল র্যাম স্লো অনেক কারন মোবাইল র্যাম অতি ক্ষুদ্র। এই ক্ষুদ্র পরিসরে চিপের ভেতর ডাটাবাস গুলো খুবই সুক্ষ্ম করতে হয়। এজন্য স্পিড কম হয়। এছাড়া স্বল্প বিদ্যুতে চালনার জন্যও এখানে যথেষ্ট রোধ থাকে ফলে র্যামের গতি কম হয়।

অন্য দিকে রোম ইউজারের কাজে আসেনা। এটি পিসি ও ফোনে উভয়ে অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে। রোমের ফাইল ডিলিট বা নতুন সংযোজন করা যায়না।

তবে এন্ড্রয়েডে আলোচিত অতি পরিচিত শব্দ ৮জিবি রোম, ১৬ জিবি, ৩২ বা ৬৪ জিবি রোম ইত্যাদি শোনা যায়। এটি সেই রোম নয় যা ROM=read only memory হিসাবে পরিচিত।

এন্ড্রয়েডের এই রোমকে বলা হয় মূলত স্টক রম বা কাস্টম রোম।

এই রোম হচ্ছে অপারেটিং সিস্টেম এর ফাইলগুলি ফোনের স্থায়ী মেমরীর যতটুকু ভলিউম সাইজ ক্রিয়েট করে ফোন পরিচালনার জন্য বরাদ্দ করে সেই মেমরী সাইজকে রোম বলা হয়। এখানে রোম অপারেটিং সিস্টেমসহ তার মেমরি ম্যানেজ করার ক্ষমতা পর্যন্ত রোম বলা হয়। কোন ফোনে ১৬ জিবি রোম বলতে বোঝায় ঐ ফোনের স্টক রোম বা অপারেটিং সিস্টেম ফোনের স্থায়ী মেমরীর ১৬ জিবি যায়গা ফোন পরিচালনার জন্য ব্যবহার করবে।

অর্থাৎ ফোন চালানোর ফাইল রাখা, এপস ইন্সটল করার জায়গা,  এপসে কাজ করার সময় ক্যাশ করার যায়গা ইত্যাদি মিলিয়ে মোট ১৬ জিবি ব্যবহার করতে পারে।

আপনি আলাদা মেমরী লাগালেও অপারেটিং সিস্টেম সেখানে কোন এপস ইন্সটল বা ক্যাশ জমা করবেনা। আলাদা মেমরিতে কেবল আপনি আপনার ব্যক্তিগত ফাইল রাখতে পারেন। 

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
16 ফেব্রুয়ারি "জীববিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন রিপন (2.9k পয়েন্ট)
0 টি ভোট
1 উত্তর
11 ফেব্রুয়ারি "কৃষি, মৃত্তিকা ও আবহাওয়া" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন রিপন (2.9k পয়েন্ট)
উত্তর অন্বেষা তে সুস্বাগতম, উত্তর অন্বেষাতে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিশেষজ্ঞগণের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। সর্বশেষ সঠিক তথ্যের সাহায্যে আপনার উত্তর প্রদান করাই আমাদের কাম্য। তাই কোন প্রশ্নে আজ যে উত্তর প্রদর্শিত হয়েছে, যদি কিছুদিন পর সে বিষয়ে কোন নতুন তথ্য পাওয়া যায় তবে পূর্ব উত্তরটি আপডেট করা হবে। কাজেই আমাদের সাথে আপডেট থাকুন। আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী নতুন পুরাতন সকল প্রশ্নের উত্তর পড়ুন। তবেই সম্মৃদ্ধ হতে পারে আপনার জ্ঞানভাণ্ডার।

7 Online Users
0 Member 7 Guest
Today Visits : 2694
Yesterday Visits : 5685

বয়স গণনা করুন





     বয়স : 0 বছর     
            0 মাস
            1 দিন

প্রয়োজনীয় ক্যালকুলেটর ও কনভার্টার পেজ পেতে এখানে ক্লিক করুন

        

BMI Calculator

                 

Height: (in cm)
Weight: (in kg)

        
...