0 টি ভোট
"উদ্ভিদ বিজ্ঞান" বিভাগে করেছেন (3.1k পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (3.1k পয়েন্ট)

মিয়োসিস কোষ বিভাজন দুই ধাপে সম্পর্ণ হয় যথাঃ-

ক) মিয়োসিস-১ 
খ)মিয়োসিস-২ 

মিয়োসিস-১ কোষ বিভাজনের প্রফেজ দশাটি প্রফেজ-১ ও 
মিয়োসিস-২ কোষ বিভাজনের প্রফেজ দশাটি প্রফেজ-২ এ বিভক্ত। 

নিম্নে এদের মধ্যে প্রধান পার্থক্য উল্লেখ করা হলঃ-

প্রফেজ-১ঃ-
প্রফেজ-১ ধাপটি মিয়োসিস কোষ বিভাজনের প্রথম মায়োসিস-১ এর ক্রোমোসোমের হ্রাসমূলক পর্যায়ের অন্তর্গত।
এ ধাপে জনন মাতৃকোষটি একটি থেকে দুটি কোষে পরিণত হয় এবং ক্রোমোসোম সংখ্যা ভাগ হয়ে অর্ধেক হয়। 
প্রফেজ-১ আবার ৫টি পর্যায়ে সম্পর্ণ হয় যথাঃ-

* লেপ্টোটিন
* জাইগোটিন
* প্যাকাইটিন
* ডিপ্লোটিন
*ডায়াকাইনেসিস 
নিউক্লিওলাস ও নিউক্লিয়ার এনভেলপ দৃশ্যমান থাকে। 
হোমোলোগাস ক্রোমোসোমের মধ্যে জোড় সৃষ্টি হয়। 
বাইভ্যালেন্ট সৃষ্টি হয় এবং বাইভ্যালেন্টের দুটি ক্রোমোসোমের একটির ক্রোমাটিডকে অপরটির নন-সিস্টার ক্রোমাটিড বলে। 
ক্রোমোসোমের বিনিময় ঘটে যাকে ক্রসিং ওভার বলে। 

প্রফেজ-২ঃ
এটি মিয়োসিস-২ ধাপে ঘটে। মিয়োসিস-২ মূলত মাইটোসিস প্রক্রিয়ার অনুরুপ।
এ ধাপে মিয়োসিস-১ এ  সৃষ্ট দুটি আপত্য কোষ পুনরায় বিভাজন হয়ে ২টি থেকে ৪টি আপত্য কোষে পরিণত হয়।
এই বিভাজনের সময় ক্রোমোসোম সংখ্যা মাইটোসিসের মতই সমান থাকে। হ্রাস পায়না। অর্থাৎ বিভাজনের পূর্বে যে ক্রোমোসোম সংখ্যা ছিল, বিভাজনের পর আপত্য নতুন ক্রোমোসোমে সংখ্যা সমান থাকে। 
এ ধাপে ক্রোমোসোমগুলো পুনরায় পানি বিয়োজন করে মোটা ও খাট হয় ফলে দৃষ্টিগোচর হয়।
এই ধাপ শেষে নিউক্লিওলাস ও নিউক্লিয়ার এনভেলপ অদৃশ্য হয়ে যায়। 
ক্রোমোসোমগুলো রঙ বা রঞ্জক ধারন করার ক্ষমতা অর্জন করে। 

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
2 টি উত্তর
+1 টি ভোট
1 উত্তর
24 সেপ্টেম্বর 2020 "বায়োলজি বই" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Sharmin Shanu (389 পয়েন্ট)
0 টি ভোট
1 উত্তর
03 জানুয়ারি "উদ্ভিদ বিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Waruf (3.6k পয়েন্ট)
1 Online Users
0 Member 1 Guest
Today Visits : 8808
Yesterday Visits : 2293
Total Visits : 5086520
...