0 টি ভোট
"স্বাস্থ্য ও শরীর গঠন" বিভাগে করেছেন (216 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন
ঘুমের মধ্যে শরীর কেপে ওঠার কারন কি?

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (3.1k পয়েন্ট)
ঘুমের মধ্যে ঝাকুনি দিয়া কেপে ওঠার কারনঃ

ঘুম একটি জটিল শারীরিক প্রক্রিয়া। অধিকাংশ জীব ঘুমায়, কিন্তু আজও এর সঠিক কারন জানা যায়নি, শুধু বিভিন্ন ব্যাখ্যা দেওয়া হয় মাত্র।

এই ঘুমের মধ্যেও আবার ঘটে নানা বৈচিত্র ঘটনা।

ঘুম জীবকে নিরাপত্তা দান করে।

মানুষের ক্ষেত্রে ঘুমের সময় ঘুমন্ত মানুষটির চেহারায় একটা রহস্যময়ী ভাব ফুটে ওঠে। ঘুমের মধ্যে মানুষ স্বপ্ন দেখে, সেদকল স্বপ্নের আবার কিছু সত্যি হতেও দেখা যায়।

আবার ঘুমের মধ্যে মানুষ চলাফেরাও করে। একে স্লিপ ওয়াকিং রোগ বলা হয়।

সেইরকমই ঘুমের মধ্যে মানুষকে কেপে উঠতে দেখা যায়। এমন কোন মানুষ পাওয়া যানেনা যে কখনো ঘুমের মধ্যে কেপে ওঠেনি।

ঘুমের মধ্যে বেশ কয়েকটা কারনে মানুষ হঠাত কেপে ওঠে।

১। অনিদ্রাঃ অনিদ্রা বা ভাল ঘুম না হওয়ার অভ্যাস বা রোগ থাকলে মানুষ ঘুমের মধ্যে কেপে উঠতে পারে। অনেক ক্লান্তির পর যখন তার শরীর শিথীল হয়ে গভীর ঘুম আসে তখনই অনিদ্রাজনিত স্নায়ুবিক হরমোন ক্রিয়া করে, এবং মানুষ কেপে উঠে জেগে যায়। এসময় এমন ভাব হয় যে সে মনে পড়ে যাচ্ছিল সেখান থেকে সতর্ক হয়ে গেছে। এসময় হৃদপিন্ড কিছুটা দ্রুত চলে।

২। স্লিপ প্যারালাইজড অবস্থাঃ ঘুমের মাঝে ঠান্ডা লাগলে বা হঠাত ঘুমের গভীরতা বেশি হলে শরীরের কোন অংশ নড়তে পারে না। এটি স্লিপ প্যারালাইজড ডিজওয়ার্ডার নামে পরিচিত। তখন আমাদের স্পাইনাল কর্ড নড়নের জন্য সিগনাল পাঠায়। এর ফলে হতাঠ ঐ অংগ নড়ে ওঠে এবং মস্তিষ্কে একটি সিগনাল পাঠায়। এর ফলে শরীরে কাপুনি এসে মানুষ সজাগ হয়।

৩। ঘুমের মাঝে ভয়ের কোন স্বপ্ন দেখলে মানুষ ভয় পেয়ে যায়। স্বপ্নে ভয় থেকে বাচতে যা করে তাতে তার বডি নড়ে যায়। এতে শরীর কেপে ঘুম ভেঙ্গে যায়।

৪। মানসিক টেনশন নিয়া ঘুমালে, আপনি ঘুমালেও মস্তিষ্কের স্নায়ুবিক চিন্তার প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে কাপিয়ে ঘুম ভেঙ্গে দেয়।

৫। ঘুমের মধ্যে ঠান্ডা লাগলেঃ ঘুম মানেই শরীরের সকল জীবন্ত কোষের অবসর, ফলে এসময় দেহে শক্তি উৎপাদনের ক্রিয়া বিক্রিয়া কম হয়। এতে দেহের তাপ কমে গিয়ে ঠান্ডা লাগতে পারে।

এই ঠান্ডার ফলে শরীরে একটি সংকোচন ঘটে। ঘুমন্ত অবস্থায় এই সংকোচন ভাব মস্তিষ্কে এমন প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে যে, কেউ হয়ত বুকের উপর বসে আছে। এই সময় নিঃশ্বাস কমে আসে বলে মনে হয় কেউ মুখ চেপে ধরেছে। এই প্রক্রিয়াকে অনেকেই বোবা ভূতে ধরা বলে থাকেন। 

এরকম হলে মস্তিষ্ক শরীরকে একটি নড়ার বার্তা পাঠায় যাকিছুক্ষনের মধ্যে কোষে শক্তি উৎপাদন বাড়িয়ে দেয় এবং দেহ আবার কাজ করা শুরু করে তখন এই হঠাত কাজে ফিরে আসার জন্য সমস্ত শরীর একটি ঝাকুনি খায়।

এভাবেই মূলত ঘুমের মধ্যে ঝাকুনি খেয়ে কেপে উঠে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
06 সেপ্টেম্বর 2020 "সাইকিয়াট্রিক পরামর্শ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Lamyea Noor (390 পয়েন্ট)
0 টি ভোট
0 টি উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
27 নভেম্বর 2020 "নিত্য শারীরিক সমস্যা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন আবির (177 পয়েন্ট)
5 Online Users
0 Member 5 Guest
Today Visits : 9118
Yesterday Visits : 2293
Total Visits : 5086830
...