0 টি ভোট
"অনির্বাচিত বিভাগ" বিভাগে করেছেন (159 পয়েন্ট)

image

অষ্টম শ্রেণি এসাইনমেন্ট ষষ্ঠ সপ্তাহ

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (3.6k পয়েন্ট)
(ক) উত্তরঃ মাছের স্বাভাবিক বৃদ্ধির জন্য মাছের পর্যাপ্ত খাবার থাকা জরুরী। খাবারের অভাব হলে পুকুরে সার প্রয়োগের মাধ্যমে মাছের খাবার বৃদ্ধি করতে হয়। এক্ষেত্রে পুকুরের মাছের ধরন ও পরিমান অনুযায়ী সার প্রয়োগ করতে হয়। সাধারনত পুকুরে ইউরিয়া সার শতক প্রতি ৪০-৫০ গ্রাম ব্যবহার করতে হয়। কাজেই মিনারা বেগম তাহার ৫ শতক জমির পুকুরের জন্য প্রতি সপ্তাহে  ৫০ * ৫ = ২৫০ গ্রাম সার ব্যবহার করেছিলেন 

(খ) উত্তরঃ উদ্দিপকে মিনারা বেগম তাহার ৫ শতক জমির পূকুরে রুই কাতলা, সিলভার কার্প ও অন্যন্য কার্পিও মাছ চাষের উদ্যোগ নেন। রুই কাতলাসহ কার্প জাতীয় মাছ এক সঙ্গে চাষের এই পদ্ধতি হল মিশ্রচাষ পদ্ধতি। যেহেতু এখানে কোন রাক্ষুসে মাছ নাই তাই খাবার নিয়া প্রতিযোগীতা কম ও অন্যন্য মাছ খেয়ে ফেলার সমস্যা থাকেনা। কিন্তু আমরা জানি এক এক মাছ পুকুরের পানির ভিন্ন ভিন্ন স্তরের খাবার খায়। যেমন সিলভার কার্প উপরের স্তরের খাবার খায় । আবার মৃগেল কমন কার্প, মিরর কার্প এরা তলদেশের খাবার খায়। রুই মধ্য স্তরের খাবার খায়। কাজেই একটি পুকুরের মাছের জন্য উপস্থিত সকল স্তরের খাবারের সদ্যব্যবহার হয়।

আবার পূকুরে সার প্রয়োগ করলে পানির সকল স্তরেই জু-প্লাঙ্কটন, ফাইটোপ্লাঙ্কটন জন্মে যা ভিন্ন ভিন্ন স্তরের মাছ খেতে পারে।

তাই একই সাথে কয়েক প্রকারের মাছ এক সাথে চাষ করা যায় এতে আলাদা আলাদা খাবারের প্রয়োজন হয়না। কম খরচে ও সজজে তাই মিনারা বেগমের উদ্যোগটি লাভজনক ও উপযোগী ছিল।

২। পলিব্যাগে চারা তৈরিঃ পলিব্যাগে নিয়ন্ত্রিত জৈব ও রাসায়নিক সারমিশ্রিত মাটি ব্যবহার করে সেখানে বীজ থেকে চারা বানানোর প্রক্রিয়াকে পলিব্যাগে চারা তৈরি বলা হয়।

পলিব্যাগে চারা তৈরির কিছু সুবিধা নিচে বর্ণনা করা হলঃ-

১। নিয়ন্ত্রিত সার মিশ্রিত মাটি ব্যবহার করা যায়।

২। মাটি শক্ত হওয়ার আশঙ্খা থাকে না।

৩। সেচ প্রদান সহজ, পানির অপচয় কম হয়।

৪। সহজে পরিবহন করা যায়।

৫। একই আকারের চারা তৈরি সহজ হয়।

৬। রোগ বালাই, পোকা দমন প্রক্রিয়া সহজ হয়।

৭। চারা সহজে পরিবহন ও বিপণন করা যায়, বাড়তি কোন ঝামেলা থাকেনা। সরাসরি পলিব্যাগের চারা স্থায়ী রোপন করা যায়।

৮। পলিব্যাগে উৎপাদিত চারা নষ্ট বা মারা যায় কম।

৯। পলিব্যাগ সহজে নির্দিষ্ট দুরত্বে সারি তৈরি করে রাখা যায়। প্রয়োজন অনুযায়ী সরিয়ে চারার ক্ষতি হওয়া থেকে রক্ষা করা যায়।

১০। বিভিন্ন ধরণের জোড় কলম করে উন্নত জাতের চারা তৈরি করা সহজ হয়।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
0 টি উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
0 টি উত্তর
0 টি ভোট
0 টি উত্তর
03 ডিসেম্বর 2020 "অনির্বাচিত বিভাগ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Tasmia Islam (159 পয়েন্ট)
2 Online Users
0 Member 2 Guest
Today Visits : 9104
Yesterday Visits : 2293
Total Visits : 5086816
...