"সাধারণ" বিভাগে করেছেন

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন

ভিটামিন বা vitamin শব্দটি হঠাৎ করেই আসেনি। এর আছে বিস্তর ইতিহাস। কিন্তু এখানে শুধু vitamin নামটি কিভাবে হল সেটাই বলছি।

ভিটামিন আবিষ্কারের পেছনে রয়েছে নানা পর্যবেক্ষন ও অনুসন্ধান।
প্রথম দিকে কিছু বিজ্ঞানী খেয়াল করেন যে কিছু কিছু খাদ্য বিশেষ রোগকে উপসম করে। ঐ খাদ্যের উপাদান খুজতে যেয়ে তারা পেয়ে যান সেই রোগ নিরাময়কারী উপাদান। এবং নাম দিতেন ঐ রোগের বিপরীত এন্টি হিসাবে। যেমন প্রথম বেরিনেরি রোগের উপাদানের ক্ষেত্রে নাম রাখেন anti-beriberi. এরুপ কয়েকটি নাম হয়ে যায়।
এরপর বিজ্ঞানী Casimir Funk থায়ামিন আবিষ্কার করেন। তিনি মূলত রাসায়নিক নাম thiamine যাহাতে চারটি amine আছে। ঠোটে মুখে ঘা হবার প্রতিরোধী এই thiamine  সম্পর্কে বিস্তারিত গবেষনা করে তিনি ধরে নিলেন এরকম সকল এন্টি (রোগ নাম) উপাদান গুলোতে amine আছে। 
আর যেহেতু এই উপাদান ঐ রোগের জন্য আবশ্যক তাই একে vital হিসাবে দেখা হয়। ফলে এই উপাদান গুলোর নাম হয় vital + amine= vitamine.

কিন্তু এর পর স্কার্ভি রোগ সহ অন্যন্য vitamine আবিষ্কারের পর দেখা গেল সকল উপাদানে amine নাই।
তাই amine কে বাদ দিতে amine এর e বাদ দিয়ে দেন। এতে নাম হয় vitamin যা দেখলে amine থাকার প্রমান পাওয়া যায়না।
সেই থেকে মূলত vitamin শব্দটি ব্যবহার হচ্ছে।
করেছেন
ধন্যবাদ!!! আপনার কথা শুনে ভালো লাগলো

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
27 ফেব্রুয়ারি "জীব বিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন mitu
5 জন সক্রিয় সদস্য
0 জন নিবন্ধিত সদস্য 5 জন অতিথি
আজকে পরিদর্শন : 2828
...