"জীব বিজ্ঞান" বিভাগে করেছেন
কোষ বিভাজন কাকে বলে?
কোষ বিভাজনের দীর্ঘস্থায়ী ধাপ কোনটি?
কোষ বিভাজনের দীর্ঘস্থায়ী ধাপের বর্ণনা দাও?

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন
উদ্দিপকে যে  কোষ বিভাজন প্রক্রিয়ায় পেয়ারা গাছটি ছোট থেকে বড় হয়েছে, সেটি হচ্ছে মাইটোসিস কোষ বিভাজন প্রক্রিয়া। 
কোষ বিভাজন প্রক্রিয়ার প্রধান তিনটি ধাপ হচ্ছে ইন্টারফেজ দশা, ক্যারিওকাইনেসিস ও সাইটোকাইনেসিস।

এই ধাপ তিনটির মধ্যে ক্যারিওকাইনেসিস হচ্ছে দীর্ঘস্থায়ী প্রক্রিয়া। এ ধাপেই মূলত কোষের সবকিছুর বিভাজন ঘটে। 
এ ধাপ প্রোফেজ, প্রো-মেটাফেজ, মেটাফেজ, এনাফেজ ও টেলোফেজ নামে ৫টি ধাপে বিবক্ত। মূলত এই ধাপটিই মাইটোসিস বিভাজন প্রক্রিয়া।
মাইটোসিস কোষ বিভাজন ঘটে জীবের দেহকোষে। এর ফলে জীব ছোট থেকে বড় হয়।
উদ্ভিদের বৃদ্ধিতে মাইটোসিসের ভূমিকাঃ মাইটোসিস এক প্রকার কোষ বিভাজন প্রক্রিয়া। এই প্রক্রিয়া জটিল ৫টি ধাপে সম্পর্ন হয়ে একটি কোষ ্বিভাজিত হয়ে দুটো কোষের সৃষ্টি হয়। যেহেতু মাইটোসিস প্রক্রিয়া জীবের দেহ কোষে ঘটে। তাই এই প্রক্রিয়ায় একটি থেকে দুটি কোষ, দুটি থেকে চারটি কোষ এভাবে দেহে কোষের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকে। এভাবে দেহের কোষের সংখ্যা বৃদ্ধি পেলে দেহও মোটা লম্বা হয়ে বৃদ্ধি পায়। উদ্ভিদের শীর্ষে যে ভাজক কোষ থাকে। এই কোষ বার বার বিভাজিত হয় এমন লক্ষ কোটি দৈহিক কোষ সৃষ্টি করে বলে উদ্ভিদ লম্বা হয়। এ ভাবে পেয়ারা গাছের দেহে কোষ বিভাজিত হয়ে বৃদ্ধি পেয়ে পেয়ারা গাছ লম্বা হয়েছে। আবার দেহে যে কোষ সৃষ্টি হয় তা আবার মোটা হয় ও পার্শে বিভাজিত হয় ফলে দেহ মোটা হয়। যদি উদ্ভিদ দেহে মাইটোসিস প্রক্রিয়ায় কোষ বিভাজিত না হত তবে কোষের সংখ্যা বৃদ্ধি পেত না ফলে উদ্ভিদ ছোট থেকে বড় হত না। তাই উদ্ভিদের বৃদ্ধিতে মাইটোসিস কোষ বিভাজন প্রক্রিয়ার গুরুত্ব অপরিসীম। এই বিভাজনের ফলে উদ্ভিদের বিভিন্ন অঙ্গ ডাল পালা ফল বীজ ইত্যাদি সৃষ্টি হয়। তাই মাইটোসিস প্রক্রিয়া না ঘটলে সমস্ত উদ্ভিদকুল ধ্বংস হয়ে যেত।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 জন সক্রিয় সদস্য
0 জন নিবন্ধিত সদস্য 2 জন অতিথি
আজকে পরিদর্শন : 1527
...