"তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বই" বিভাগে করেছেন
বায়োমেট্রিক্স কি

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন
বায়োমেট্রিক্স হল এমন একটি পদ্ধতি যেখানে ব্যক্তির শরীরের কোন অঙ্গ কিংবা আচারণগত বৈশিষ্ট্যের উপর ভিত্তি করে ব্যক্তিকে অদ্বীতিয় হিসেবে চিহ্নিত করে এবং বায়োমেটিক্সে কম্পিউটার তার নিজের ভেতরকার সংরক্ষিত কোডের সাথে ব্যক্তির প্রদানকৃত কোডের তুলনা করে। যদি তা মিলে যায় তবে ব্যক্তি প্রবেশাধিকার বা একসেস পায় । 

 উপাদানগুলো হলো - 

  

১। ফিঙ্গার প্রিন্টঃ মানুষের হাতের আঙ্গুলের ছাপ ফিঙ্গারপ্রিন্ট রিডারের মতো যন্ত্রের সাহায্যে কম্পিউটারের কাছে ডিজিটাল ডাটায় রূপান্তরিত হয়ে পৌঁছায় । যার কারণে ব্যক্তি সনাক্ত হবার মাধ্যমে সে অ্যাকসেস পায়। 

২। হ্যান্ড জিওমিট্রিঃ প্রতিটি মানুষের হাত ভিন্ন হয়  তাই এই পদ্ধতিতে মানুষের হাতে আকার-আকৃতি নির্ণয়ের মাধ্যমে কম্পিউটার মানুষকে সনাক্ত করে। এখানে হ্যান্ড জিওমেট্রি রিডার নামক যন্ত্র ব্যবহার করা হয়।  

৩। আইরিস এবং রেটিনা স্ক্যানঃ বায়োমেট্রিক্স প্রযুক্তিতে সনাক্তকরনের জন্য চোখের আইরিসকে আদর্শ অঙ্গ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। একজন ব্যক্তির চোখের আইরিস এর সাথে অন্য ব্যক্তির চোখের আইরিস এর প্যাটার্ন সবসময় ভিন্ন হয়। আইরিশ সনাক্তকরণ পদ্ধতিতে চোখের চারপার্শ্বে বেষ্টিত রঙিন বলয় বিশ্লেষণ ও পরীক্ষা করা হয় এবং রেটিনা স্কান পদ্ধতিতে চোখের পিছনের অক্ষিপটের মাপ ও রক্তের লেয়ারের পরিমাণ বিশ্লেষণ ও পরিমাপ করা হয়। উভয় পদ্ধতিতে চোখ ও মাথাকে স্থির করে একটি ডিভাইসের সামনে দাড়াতে হয়।

৪। ফেইশ রিকোগনিশনঃ কম্পিউটার প্রোগ্রামের সাহায্যে মানুষের মুখের আকৃতি সনাক্ত করা হয় । দুই চোখের মধ্যবর্তী দূরত্ব, নাকের দৈর্ঘ্য এবং ব্যাস, চোয়ালের কৌণিক পরিমাণ ইত্যাদি তুলনা করার মাধ্যমে কোন ব্যক্তিকে সনাক্ত করা হয়।  

৫। ডিএনএ টেস্ট ঃ মানুষের দেহ কোষ থেকে ডিএনএ নেবার পর সেটা দিয়ে মানুষের ডিএনএ ফিংগার প্রিন্ট তৈরি করা হয়। চুলের মতো অঙ্গ এখানে ব্যবহার করা হতে পারে। 

৬। ভয়েস রিকগনিশনঃ ভয়েস রিকোনিগশন পদ্ধতিতে ডেটাবেজে সংগ্রহ করে রাখা হলে ভয়েস যদি ব্যবহারকারীর কন্ঠের সাথে মিলে যায় তবে অ্যাকসেস পাওয়া যায়। 

৭। সিগনেচার ভেরিফিকেশনঃ  স্বাক্ষরের আকার, লেখার গতি, লেখার সময় এবং কলমের চাপকে পরীক্ষা করে ব্যক্তির স্বাক্ষর সনাক্ত করা হয়।

৮। কীস্ট্রোক ভেরিফিকেশন ঃ ব্যক্তির টাইপিং ধরণ, ছন্দ এবং কীবোর্ডে টাইপের গতি বিশ্লেষণ করে ব্যক্তি সনাক্ত করা হয়। 

আইনশৃঙ্খলা এবং বিভিন্ন নিরাপত্তামূলক কাজে বায়োমেট্রিক্স  ব্যবহার করা হয়। গাড়ি, কম্পিউটার, মোবাইল , লাবরেটরির মতো অনেক যায়াগায় এর ব্যবহার হচ্ছে । 

বাংলাদেশে জাতীয় পরিচয় পত্রে এবং সিম নিবন্ধনের সময় আঙ্গুলের ছাপ বা ফিঙ্গার প্রিন্ট নেওয়া হয়। 

এ প্রযুক্তি নিয়ে অনেক বড় বড় সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠান কাজ করছে । সেন্সর ইনকর্পোরাইড নামের প্রতিষ্ঠান এই প্রযুক্তি উদ্ভবন করেছে । 

এই প্রযুক্তির কারণে অনেক নিরাপত্তা কার্যক্রম আরো জোরদার হয়েছে । 

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

7 জন সক্রিয় সদস্য
0 জন নিবন্ধিত সদস্য 7 জন অতিথি
আজকে পরিদর্শন : 2384
...