0 টি ভোট
"কম্পিউটার" বিভাগে করেছেন (389 পয়েন্ট)
বন্ধ করেছেন
বন্ধ

1 উত্তর

+1 টি ভোট
করেছেন (3.6k পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর
স্ত্রীদেহে পিরিয়ড একটি গুরুত্বপূর্ণ শারীরিক ক্রিয়া।

এর উপকারিতা বা অপকারিতা বলাটাই অর্থহীন, কারন এটি বিশেষ অঙ্গের কাজ। তাই কাজের সুবিধার উপর কেবল এইটুকু বলা যায় যা অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ। তা হচ্ছে-

১। পিরিয়ডের জন্যই একটি ডিম্বানু নষ্ট হলেও পরের চক্রে আবারও আরেকটি ডিম্বানু জরায়ুতে আসে।

২। যেহেতু প্রতিটি ডিম্বানু সন্তান সৃষ্টিতে সাক্ষম তাই, পিরিয়ড চক্রের জন্যই একজন মানুষ তার পরিকল্পনা ও সময় সুযোগ ইত্যাদি অনুযায়ী সন্তান নিতে পারেন। এই কারনে পৃথিবীতে মানব জগত টিকে আছে। যদি পিরিয়ড না হত তাহলে আপনি আমি হয়ত জন্মই নিতে পারতাম না। ফলে পৃথিবীতে মানুষ বলে কিছু থাকত না। 

৩। প্রতি মাসে পিরিয়ড না হয়ে যদি মাত্র একবার হত তাহলে একটাই ডিম্বানু যদি নষ্ট কিংবা নিষেকের সুযোগ নাও পেতে পারত। আর এটি হলে আমরা জন্ম নেবার সুযোগ পেতাম না।  ঐ একটি ডিম্বানুতে যদি কেউ জম্ম নেওয়ার সুযোগ পেত তবুও নানা অসুখ বা কোন ক্রমে শিশু মৃত্যু ঘটলে আর কোন সন্তানের সুযোগ না থাকায় নিঃশ্ব বাবা মা দুজনের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে বিলিন হয়ে যেত বংশ।

তাই মানব বংশ রক্ষার জন্য পিরিয়ডের গুরুত্ব এতটাই যে এর বিকল্প নাই।

৪। পিরিয়ড না হলে নারী বন্ধ্যা হত,  আর বন্ধ্যা নারীর জীবন মায়ের স্বাদ না পাওয়ার বেদনা কত তা একজন মা বলতে পারেন, আমিইবা কি বলব। কথায় বলে, মাতৃত্ব নারীর সবচেয়ে বড় সম্পদ।  না শুধু নারীর নয় পুরুষেরও। কারন নারী মা না হলে পুরুষই জন্ম নিত কিভাবে?

অপকারীতাঃ

১। পিরিয়ডের একটাই অপকারীতা তা হচ্ছে দু তিন দিন পেটে ব্যাথা থাকে আর এই সময় নারীরা পুরুষের মত পাবলিক প্লেসে স্বাধীনভাবে যেতে পারেনা। আর কোন অপকারীতা নাই।

২। পিরিয়ডের সময় ভালভাবে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকা জরুরি, তা না হলে যদি জীবানু আক্রমন করে তবে নানা রোগ সংক্রমন হতে পারে। এটি অপকারীরা না বলে পরিচ্ছন্নতা সতর্কতা  বলা যেতে পারে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
0 টি উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
6 Online Users
0 Member 6 Guest
Today Visits : 2475
Yesterday Visits : 8512
...