"সাধারণ" বিভাগে করেছেন
এমন সময় ঝড় এলো এক, ঝড় এলো ক্ষ্যাপা বুনো, এ লাইন টির ব্যাখ্যা চাই?

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন
সাহিত্যিক কথামালার ব্যাখ্যাঃ মানুষের জীবন সুখে কাটবে এটাই প্রত্যাশা। আর সেই সুখ রচনা করতে মানুষ নিরন্তর ছুটে চলেছে, সংগ্রামে লিপ্ত হয়েছে। মানুষ জানে সংসারে ছোট ছোট বিপত্তি ঝগড়া না পাওয়ার বেদনা বা হঠাৎ সুখের মাঝে দুখের হাওয়া বয়ে যেতে পারে। আর এগুলো সামাল দেওয়ার প্রত্যাশাও সে করে। ব্যক্তি অথৈ সাগর মাঝে একটুখানি ভেলার মতই দুঃখ বরন করে নেয় এই ভেবে যে এই সময়টা হয়ত চলেই যাবে। কিন্তু ব্যক্তি কখনোই ভাবেনা যে, এই দুখের মাঝেও এক বড় দুঃখ এসে তার শেষ স্বপ্নটুকুও কেড়ে নিতে পারে। কালবৈশাখী ঝড়ে যখন মানুষ বিপদে পড়ে, বাচার জন্য সংকায় দিন কাটায় তখনিই যেমন ঘূর্নিঝড় জলোচ্ছাস পাগলা, ক্ষ্যাপা বাতাসের মত এসে মরার উপর খাড়ার ঘা দিয়া যায় তখন মানুষের শেষটুকুও নিঃশেষ হয়ে যায়। চুরমার হয়ে যায় বেচে থাকার তোরি।  এমনি উক্ত কবিতাংশে বিপদের মাঝে হঠাত অদম্য অবুঝ সবকিছু প্রলয়ঙ্কারী এক বিপদের  কথা বলা হয়েছে।

কবিতাংশে বাস্তব উদ্দেশ্যের ব্যাখ্যাঃ কবিতাংশটুকু মুলত একুশের গান সংকলিত "আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো" গণ গানের অংশ। এখানে ১৯৫২ সালে ২১ ফেব্রুয়ারীতে ভাষার জন্য প্রাণ দেওয়া মানুষের কথা বলা হয়েছে। পাকিস্তানি শাসন শোষনে মানুষের জীবন যখন পর্যদস্তু তখন পাকিস্তানি বাহিনীর আক্রমন মানুষকে দিশাহীন করে দেয়। তবুও এই বিপদ কাটবে এমন আশায় মানুষ সবকিছু সহ্য করে নতুন দিনের অপেক্ষায় প্রহর গুনছিল। কিন্ত হঠাত তছনছ কারী পাগলা ক্ষ্যাপা ঝড়ের মত ৭১ এ পাক বাহিনী আবার হামলা চালাতে ঝাপিয়ে পড়ল বাঙ্গালীদের উপর। এ যেন মরার উপর খাড়ার ঘা। বিপদের মাঝে আরেক বিপদ যা জীবনের সবকিছু কেড়ে নেয়। বুনো খ্যাপা বাতাস যেমন ছোট বড় সব কিছুকেই নিয়া যায় তেমনি পাক বাহিনী শুধু যুদ্ধ ও সেনা বুদ্ধিজীবিদের প্রানহানি নয়, তারা কেড়ে নিতে চায় মহিলা  শিশুদের জীবন। মা বোনের সম্মান। তাদের ভয়াল গ্রাস থেকে কিছুই বাদ যায়না। এভাবে কবিতাংশে পাক বাহিনীর নির্মম অত্যাচারের কথা বলা হয়েছে।    

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

7 জন সক্রিয় সদস্য
0 জন নিবন্ধিত সদস্য 7 জন অতিথি
আজকে পরিদর্শন : 2943
...