"সাধারণ জিজ্ঞাসা" বিভাগে করেছেন
জীবন কি?

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন

জীবনঃ প্রোটোপ্লাজমের কার্যক্রমকে জীবন বলে।

প্রোটোপ্লাজম এই কার্যক্রম করে থাকে কিছু জৈব রাসায়নিক পদার্থের ক্রিয়াকলাপ নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে।


 জীবিত কোষের শারীরিক দৃষ্টিভঙ্গি পদার্থবিদ এরভিন শ্রোডিঞ্জার কর্তৃক ১৯৪৪ সালে অপেশাদারদের জন্য লেখা একটি বিজ্ঞানের বই। বইটির ভিত্তি ছিল ১৯৪৩ সালে ট্রিনিটি মহাবিদ্যালয়, ডাবলিন এর উন্নত গবেষণার জন্য ডাবলিন ইনস্টিটিউট এর বদৌলতে শ্রোডিঞ্জার কর্তৃক ধারাবাহিক কিছু বক্তৃতার উপর। বক্তৃতাটি প্রায় ৪০০ দর্শক টানতে সক্ষম হয়, যাদেরকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছিল যে বিষয় বস্তু কঠিন এবং বক্তৃতাটি জনপ্রিয় নয় যদিও পদার্থবিদদের বড় হাতিয়ার গানিতিক অনুমান খুবই কম ব্যবহার করা হবে। [১] শ্রোডিঞ্জারের বক্তৃতা একটি প্রশ্ন কেন্দ্রিক ছিল: "পদার্থ এবং রসায়ন দ্বারা স্থান ও সময়ের ঘটনা বিশেষ সীমার মাঝে জীবিত বস্তুর ভিতর ঘটে তা কিভাবে ব্যাখ্যা করা যায়?"[১]

বইটিতে শ্রোডিঞ্জার পরিচিত করান একটি "আপেরিওডিক স্ফটিকের" যা এর সমযোজী রাসায়নিক বন্ধনের মাঝে জেনেটিক তথ্য বহন করে। ১৯৫০ সালে এই চিন্তা উদ্দিপিত জেনেটিক অণু আবিস্কারে আগ্রহ সৃষ্টি করে। যদিও ডি এন এ এর উপস্থিতি জানা যায় ১৮৬৯ সাল থেকে তারপরও শ্রোডিঞ্জারের সময় এর পুনতপাদনে ভুমিকা এবং এর পেচানো গঠন জানা ছিল না। অতীতের দিকে দৃষ্টিপাত করলে শ্রোডিঞ্জারের আপেরিওডিক স্ফটিককে জীববিজ্ঞানীদের জেনেটিক অণু খোজার ভালো কারণ যুক্ত অনুমান হিসেবে বলা যেতে পারে। উভয় জেমস ড. ওয়াটসন এবং ফ্রান্সিস ক্রিক পৃথকভাবে ডি এন এ এর গঠন আবিস্কার করেন এবং শ্রোডিঞ্জারের বই এর প্রশংসা করেন জেনেটিক তথ্য সংরক্ষণ এর কাজ কিভাবে হয় এর তত্ত্বীয় বর্ণনা দেয়ার জন্য এবং উভয়ই তাদের প্রাথমিক জীবনের গবেষণার অনুপ্রেরণার উৎস হিসেবে এটিকে স্মরণ করেন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

3 জন সক্রিয় সদস্য
0 জন নিবন্ধিত সদস্য 3 জন অতিথি
আজকে পরিদর্শন : 2150
...