"বায়োলজি বই" বিভাগে করেছেন
ফ্লুইড মোজাইক মডেল কাকে বলে?

ফ্লুইড মোজাইক মডেল বলতে কি বোঝায় ব্যাখ্যা কর?

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন
ফ্লুইড মোজাইক মডেল ঃ

প্লাজমামেমব্রেনের গঠন সংক্রান্ত ব্যাখ্যা প্রদান করতে গিয়ে বিজ্ঞানী  সিঙ্গার ও নিকলসন কোষের যে মডেল প্রস্তাব করেন তা ফ্লুইড মোজাইক মডেল নামে পরিচিত। এটি সর্বজনগ্রাহ্য আধুনিক মডেল নামে পরিচিত।

বিজ্ঞানীদ্বয়ের বর্ণানা অনুসারে, প্লাজমামেমব্রেন ফসফোলিপিড ও প্রোটিন অনু নিয়ে গঠিত। আর এই ফসফোলিপিড সাধারনতঃ দুটি স্তরে বিন্যস্ত থাকে। প্রত্যেক স্তরের ফসফোলিপিড অণুগুলো দুইপ্রান্ত বিশিষ্ট। একটি প্রান্তকে পানিগ্রাহী  মস্তক ( hydrophilic head) এবং অন্যটিকে পানিবিদ্বেষী লেজ ( hydrophobic tail) বলে।

ফসফোলিপিড অণুগুলোর ফাঁকে ফাঁকে কোলেষ্টরল অণু । ফসফোলিপিড ও কোলেষ্টরল অণুর মধ্যে ভাসমান থাকে স্ফীতকায় অনেক প্রোটিন অনু। অনুগুলো থাকে অনিয়ত বিন্যস্ত। বিন্যাসের ভিত্তিতে প্রোটিন অনু তিন ধরনের হয়ে থাকে।

উদাহরণস্বরূপ বলা যায় ঃ

প্রান্তীয় প্রোটিন - এগুলো ফসফোলিপিড স্তরের বহিঃ বা অন্তঃতল সংলগ্ন প্রোটিন

অন্তর্নিহিত প্রোটিন - এগুলো ফসফোলিপিড স্তরের আংশিক বা সম্পূর্ণ প্রবিষ্ট থাকে এবং

আন্তঃ ঝিল্লি প্রোটিন - এগুলো ফসফোলিপিডের দুই স্তর জুড়েই থাকে।

ফসফোলিপিড অণুগুলো সব সময় সচল থাকে, কাঁপে এবং পরস্পরের সঙ্গে ঠোকাঠুকি করে লাফিয়ে ওঠে। তারপর  স্তরের মধ্যেই স্থান পরিবর্তন করে। বিল্লিকে তখন তরল পদার্থের মতো মনে হয়। অন্যদিকে, ঝিল্লিকে পৃষ্টতল থেকে দেখলে পোটিন অণুগুলোকে মোজাইকের মতো দেখায়। আর এ অবস্থাকে এক কথায় বোঝানোর জন্য ঝিল্লির মডেলের নাম হয়েছে ফ্লুইড মোজাইক মডেল। অনেক ফসফোলিপিড অণু এবং অধিকাংশ প্রোটিন অণুর সংঙ্গে ক্ষুদ্র কার্বোহাইড্রেট শৃঙ্খল যুক্ত থাকে। তখন এগুলোকে যথাক্রমে গ্লাইকোলিপিড ও গ্লাইকোপ্রোটিন বলে। কার্বোহাইড্রেট শৃঙ্খলগুলো সব সময় ঝিল্লির বর্হিতলে অবস্থান করে মাত্র।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
6 জন সক্রিয় সদস্য
0 জন নিবন্ধিত সদস্য 6 জন অতিথি
আজকে পরিদর্শন : 2651
...