"প্রেম ভালবাসা ও বন্ধুত্ব" বিভাগে করেছেন
মানুষ প্রেমে পড়ে কেন?

1 উত্তর

+1 টি ভোট
করেছেন
প্রেমঃ যখন দুটি মানুষ একে অপরের সম্পর্কে কিছু জেনে, সেই বিষয়টি নিজের অন্তরে একটি প্রশান্তির সৃষ্টি করলে, মানুষ দুটি সেইরকম ভাললাগার ঘটনা সারা জীবন পেতে একে অপরের প্রতি আকৃষ্ট হয়। একে অন্যকে একসাথে সারাজীবন পাশে পাবার যে আকাঙ্খা জন্মে তার নাম প্রেম।

প্রেমের অনেক শর্ত, কারন ও নীতি আছে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে প্রেমের শুরু হয় চেহারা দেখে। তারপর আস্তে আস্তে ব্যক্তির আন্তরিকতা, স্বভাব, কর্ম, ব্যবহার, চাঞ্চাল্যতা সেই প্রেমকে গভীর করে দেয়। কেউ যদি বলে সে চেহারা দেখে প্রেমে পড়েনি, তাহলে নিশ্চিত সে মিথ্যা বলছে।

কেন মানুষ চেহারা দেখে প্রেমে আকৃষ্ট হয়ঃ বিজ্ঞান বলে যে, প্রত্যেক মানুষ তার বাবা মায়ের স্নেহ ভালবাসা, গন্ধ, আচার, নীতি ইত্যাদির সাথে বড় হয়ে সেই স্বভাব পেয়ে থাকে। এবং ঐ ব্যক্তির ডিএনএ তে বাবা মায়ের ডিএনএ থাকায় বাবা মায়ের জীনের মতই নিজের জীন ক্রিয়া করে বলে ব্যক্তি সর্বদা বাবা মায়ের মতই সবকিছু খুজে নিতে চায়।

এর মধ্যে আবার ছেলেরা মায়ের মত চেহারা দ্বারা আকৃষ্ট হয়। কেননা মায়ের মায়াময়ী আদর স্নেহ ভালবাসা গন্ধ ইত্যাদি তাকে আকৃষ্ট হতে শেখায় কেননা তার জীনে প্রচ্ছন্ন মায়ের জিন রিসেসিভ কাজ করতে চেষ্টা করে। মায়ের কোলের চেয়ে অন্য কোন নিরাপদ স্থান আর নাই। এই কারনে ছেলেরা মায়ের চেহারার মত আকৃষ্ট করার মত চেহারা দেখলেই প্রেমে পড়ে। এখানে চেহারা অর্থ শুধু কাঠামো গঠন ও রং নয়, প্রতি মানুষের চেহারায় একটি লুকায়িত মায়া থাকে, মুখে একটি মায়াময়ী ভাব থাকে সেটি ধরা দেয় কেবল অন্তর চক্ষুতে। এই চেহারা কিছুটা মিল পেলেই মানুষ প্রেমে পড়ে।

তবে এটা প্রাথমিক অবস্থা। এর পর স্বভাব চরিত্র, ব্যবহার, নিজ ইচ্ছা, স্থান, কাল, পাত্র, অর্থনীতি, মানুষের কৃত্রিম ভাবনা ইত্যাদি দ্বারা প্রভাবিত হয়ে চুড়ান্ত প্রেম ঠিক হয়।

ভালবাসাঃ ভালবাসা হচ্ছে পছন্দের মানুষটির প্রতি আদর, স্নেহ, বা তাকে তুষ্ট করার প্রবনতা।

এক্ষেত্রে সম্পর্ক ভেদে ভালবাসা ভিন্ন ভিন্ন হয়, যেমন ছেলে মেয়ের ভালবাসা যা প্রেম, ভাই বোনের ভালবাসা, পিতা মাতা, সন্তানের ভালবাসা আলাদা আলাদা হবে।

পছন্দঃ পছন্দ হচ্ছে নির্দিষ্ট কিছু বৈশিষ্ট্যের আলোকে ভিন্ন ভিন্ন ভাল লাগার স্থায়ী তালিকা।

যেমন আপনি গান পছন্দ করেন। এর অর্থ অন্যন্য খেলাধুলা আরও অনেক কিছুর মধ্য থেকে স্থায়ীভাবে একটি বা কয়েকটি কে এমন ভালবাসেন বা যা আপনার এমন ভাল লাগে যে সেটা স্থায়ী রুপে থাকে আপনার ভেতর, এবং তা যখনই আপনি পান তখনই তা ব্যবহার বা গ্রহন করেন, সেখানে রেস্ট্রিকশন থাকেনা। পছন্দ সাধারনত একাধিক বা কয়েকটি গ্রুপও হতে পারে। পছন্দ আর ভাল লাগার মধ্যে পার্থক্য হচ্ছে ভাল লাগা সাময়িক, হঠাৎ কিছু ভাল লেগে যেতে পারে। কিন্তু পছন্দ হচ্ছে পূর্ব অভিজ্ঞতার ভিক্তিতে চয়ন যা স্থায়ী বৈশিষ্ট্যে রুপান্তরিত হয়।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 জন সক্রিয় সদস্য
0 জন নিবন্ধিত সদস্য 1 জন অতিথি
আজকে পরিদর্শন : 1121
...