0 টি ভোট
"তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বই" বিভাগে করেছেন (180 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (163 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন

যোগাযোগ করার পদ্ধতিকে ২ ভাগে ভাগ করা যায়। যথা:

১.একমূখী: তখন কোন একজন ব্যক্তি একটি প্রতিষ্ঠান অনেকের সাথে যোগাযোগ করে সে পদ্ধতি কে একমুখী বা ব্রডকাস্ট বলে। কোন লাইভ অনুষ্ঠানে দর্শক বা শ্রোতাদের অবশ্যই ফোন করে যোগাযোগ করার সুযোগ দেয়া হয় তবে সেখানে লক্ষ লক্ষ শ্রোতাদের মধ্যে কয়েক জন যোগাযোগ করতে পারেন। আসলে এটা একমুখী। এর আরও উদাহরণ হিসেবে বলা যায় খবরের কাগজ ও ম্যাগাজিন।
২. দ্বিমুখী: একমুখী যোগাযোগের সম্পূরক রূপ হলো দ্বিমুখী। এই পদ্ধতিতে উভয় পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা যায় এবং উভয় পক্ষ থেকে পাল্টা জবাব দেওয়া যায়। এর উদাহরণ হলো টেলিফোন ও মোবাইল ফোন।
করেছেন (163 পয়েন্ট)
  Sorry Ami vule aita te ai and dice l am really sorry for it
করেছেন (163 পয়েন্ট)
বইয়ের ৮নং পৃষ্ঠায় ১-৭ যে পয়েন্ট গুলো আছে সেগুলো । কিন্তু ৩ও৫ নং এর মধ্যের পয়েন্ট গুলো নয়।

যেমন: মোবাইল ফোন, ফ্যাক্স, ই-মেইল, ইন্টারনেট, ইন্ট্রানেট, বাজার বিশ্লেষণ, প্রতিদ্বন্দ্বীদের সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ, সরবরাহ, প্রচার এগুলো বাদ দিয়ে পড়তে হবে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

7 Online Users
0 Member 7 Guest
Today Visits : 5406
Yesterday Visits : 7651
...