আমাদের সেবাটি আপনাদের জন্য ফ্রি চালিয়ে যেতে অন্বেষা এন্ড্রয়েড এপসটি ডাউনলোড করুন।
0 টি ভোট
"পদার্থ বিজ্ঞান" বিভাগে করেছেন (350 পয়েন্ট)
বিভাগ পূনঃনির্ধারিত করেছেন
এই প্রশ্নটি করা হয়েছিল কিন্তু সেখানে সূর্যকে কেন্দ্র করে কেন গ্রহ ঘুরছে তা ভালোভাবে ব্যাখ্যা করা হয়নি।(বলা হয়েছিল same চাঁদের অনুরূপ)।তাই সেই করা question টির লিংক দিবেন না।আলাদাভাবে উত্তর দিয়ে দিন।শুধু সূর্যের টাই দিন।চাঁদের টি বুঝতে পেরেছি।                     
করেছেন (941 পয়েন্ট)

এই ভিডিওটি দেখুন। আশা করি বুঝবেন। 

করেছেন (350 পয়েন্ট)
ইট্টু লিখে ব্যাখ্যা করলে ভালো হয়।৫ লাইনের
করেছেন (941 পয়েন্ট)

সৌরজগতের সকল পদার্থের মতো সূর্যও পৃথিবীকে আকর্ষণ করে। পৃথিবীর উপর সূর্যের এই আকর্ষণ না থাকলে পৃথিবী সোজা সরলরেখা বরাবর চলে যেত। কারণ যেকোনো গতিশীল বস্তু সবসময় সরলরেখা বরাবর যেতে চায়। কিন্তু সূর্যের আকর্ষণের কারণে তা সৌরজগতের মাঝে হারিয়ে না গিয়ে সূর্যের কাছাকাছি থেকে ডিম্বাকার কক্ষপথে সূর্যের চারদিকে ঘুরতে থাকে। 


বিঃ দ্রঃ এই ঘটনাটি চিত্র ছাড়া বোঝা অসম্ভব। তাই ভিডিওটি দেখতে বলেছিলাম।   

করেছেন (350 পয়েন্ট)
দেখবো কোনো একসময় ল।thanks.আচ্ছা এটা কি অন্য গ্রহের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য 
করেছেন (941 পয়েন্ট)
অবশ্যই। দুঃখিত আমি ভুলে পৃথিবী লিখেছি। পৃথিবীর জায়গায় গ্রহ লিখে নিয়েন।
করেছেন (14 পয়েন্ট)
Love Thank u

2 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (201 পয়েন্ট)
এই মহাবিশ্বে প্রতিটি বস্তু একে অপরকে আকর্ষণ করে। আমাদের সৌরজগতে সূর্যের আকর্ষণ বল বেশি । সূর্যের তুলনায় সকল গ্রহের আকর্ষণ বল কম এবং সূর্য কেন্দ্রে হবার কারণে এই সৌরজতের সকল গ্রহ এবং নক্ষত্র সূর্যকে কেন্দ্র করে ঘুরে।
+1 টি ভোট
করেছেন (2.3k পয়েন্ট)
কোন বস্তু কোন প্রকার শক্তির উৎস থেকে শক্তিপ্রাপ্ত হয়ে গতিশীল হলে মহাশুন্যে তা গতির দিকে সমবেগে চলতে থাকে। কারন মহাশুন্যে গতিরোধের কোন প্রতিবন্ধকতা নাই। আবার মহাকর্ষ সূত্র থেকে আমরা জানি মহাবিশ্বের প্রতিটি বস্তুকণা একে অপরকে আকর্ষন করছে। কাজেই গতিশীল কোন বস্তু অন্য একটি বড় বস্তুর পাশ দিয়া অতিক্রম করার সময় আকর্ষন বলের প্রভাবে তার দিকে পতিত হতে থাকে। এখন গতিশীল বস্তুর গতি ও পাশের আকর্ষিত বস্তুর আকর্ষন ও ভরবেগ যদি একই সাম্যবস্থায় আসে তাহলে গতিশীল বস্তুটি তার রৈখিক গতি অন্য বস্তুর দিকে পতনের জন্য বক্র গতিতে রুপ নেয়। ফলে বস্তুতি পুরাপুরি না পারে পতিত হতে কারন তার রৈখিক গতির জন্য একটি সম্মুখ বেগ থেকে, আবার বস্তুটি না পারে সোজা চলে যেতে কারন পাশের আকর্ষিত বস্তুটির ক্ষমতা তাকে নিজের দিকে টেনে আনে। এভাবে বস্তুটি ভারসাময়ে থেকে বেশি প্রভাবের আকর্ষিত বস্তুটির চারপাশে ঘুরতে থাকে। 

আবার যখন কোন বস্তু অন্য বস্তুকে কেন্দ্র করে ঘুরতে থাকে তখন দুটি বিপরীত বলের উদ্ভব হয়। একটি কেন্দ্রমূখী বল যার প্রভাবে কেন্দের দিকে অভিকর্ষ সৃষ্টি হয় এবং সমান বিপরীতে কেন্দ্রবিমুখী বলের সৃষ্টি হয় যার প্রভাবে বস্তুটি ঐ গতিপথ থেকে ছিটকে যেতে চায়। এই দুই বিপরীত মুখী বল একে অপরকে নাকচ করে ভারসাম্যে থেকে সুষম বেগের একটি কক্ষপথ বা অরবিট সৃষ্টি করে ঘুরতে থাকে। 

এভাবেই গ্রহগুলো সূর্যকে কেন্দ্র করে ঘুরছে।    

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+3 টি ভোট
1 উত্তর
+3 টি ভোট
1 উত্তর
উত্তর অন্বেষা তে সুস্বাগতম, যেখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং গোষ্ঠীর বিশেষজ্ঞগণের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। যেহেতু মানুষের অজানাকে জানার আগ্রহের জন্য নিত্যনতুন তথ্য উপাত্ত,ধারনা ভাবনা স্বীকার্য আবিষ্কার হচ্ছে তাই তথ্য বহু ক্ষেত্রে পরিবর্তনশীল। সর্বশেষ সঠিক তথ্যের সাহায্যে আপনার উত্তর প্রদান করাই আমাদের কাম্য। তাই কোন প্রশ্নে আজ যে উত্তর প্রদর্শিত হয়েছে, যদি কিছুদিন পর সে বিষয়ে কোন নতুন তথ্য পাওয়া যায় তবে পূর্ব উত্তরটি আপডেট করা হবে। একারনে সময়ের সাথে সঠিক তথ্যের জন্য আমাদের সাথেই আপডেট থাকুন। আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী নতুন পুরাতন সকল প্রশ্নের উত্তর পড়ুন। তবেই সম্মৃদ্ধ হতে পারে আপনার জ্ঞানভাণ্ডার।

84 Online Users
1 Member 83 Guest
Online Members
Today Visits : 42266
Yesterday Visits : 62143
Total Visits : 2404336

বয়স গণনা করুন

বৈধ তারিখ সংখ্যা অনুসারে প্রবেশ করান

.




     বয়স : 0 বছর     
            0 মাস
            1 দিন
...