"রুপচর্চা ও সৌন্দর্য বর্ধন" বিভাগে করেছেন
পায়ের পাতা , আঙ্গুল, আঙ্গলের ফাকা স্থান, নখ কিভাবে যত্ন ও পরিপাটি রাখা যায়? 

2 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন
প্রথমেই বলবো পা কে পরিষ্কার রাখা উচিৎ।  গোসলের সময় ভাল মানের সাবান দিয়ে দেহের অন্যান্য অঙ্গ এর সাথেসাথে হাত,পায় পরিষ্কার করা আবশ্যক। আমরা সব সময় ই যে কাজটা করি তা হল,হাত পা ধুয়ে গামছা দিয়ে মুছে এভাবেই থাকি। কিন্তু অনেকের হাত পায়ের অধিক শুষ্কতার জন্য পরবর্তী তে দেখা দেয় পা ফাটা-হাতের কোণে ঘা এসব দেখা  দেয়। সেজন্য বলবো গোসলের পর কিংবা হাত পা পরিষ্কার করারর পর ভাল মানের ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিৎ।  অধিক সময় হাত পা বা ভিজিয়ে রাখার উত্তম। প্রতিদিন হাত পায়ে গোলাপজল ব্যবহার করা আরো ভাল। নখের ময়লা দূর করার জন্য ব্রাশে সাবান লাগিয়ে নখে ঘষতে পারেন। 
0 টি ভোট
করেছেন

নারিকেল তেল: 

 রাতে ঘুমানোর সময় নারিকেল মেখে নেবেন পায়ের গোড়ালি- পায়ের পাতা সহ যতটুকু সম্ভব! এটিপায়ের রুক্ষতা দূর করে পাকে নরম কোমল করে তুলে। নারকেলতেলের লুরিক অ্যাসিড পায়ের ইনফেকশন দূর করে দেয়। ব্যাস! এবার ঘুমিয়ে পড়ুন!

অলিভ ওয়েল:

জলপাই-এর গুনের অভাব নেই! কালোজলপাইয়ের তেলে আছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট এবং ও ফ্যাটি অ্যাসিড। আছে ভিটামিন ই! অতএব আচ্ছামত অলিভ অয়েল মেখে নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন পায়ের ব্যাপারে! এমনকী হাতে –গলায় মুখেও মাখতে পারেন! জরপাই তেল বা অলিভ অয়েল মানেই তএকর বন্ধু! 

শ্যাম্পু:

বাসায় আর যাই থুকুক বা না থাকুক শ্যাম্পু তো থাকবেই! এবার মন শান্ত করার জন্য পচন্দের বই হাতে নিয়ে হালকা একট গরম পানি সহ পাত্রে পা ডুবিয়ে বসে পড়ুন! গরম পানিতে শ্যাম্পুলবণও লেবুর রস মিশিয়ে তাতে পা রাখুন দশ মিনিট! এটা হাতের জন্যেও প্রযোজ্য! হাত-পা পুছে ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম মেখে নিতে ভুলে যাবেন না! শীতের কথা মাথা রেখে ত্বকের সাথে মানানসই ক্রিম নিন! 

ভ্যাসেলিন:

পমেট বা ভ্যাসেলিনের তুলনা আসলে এরাই! শীতের শুরু থেকে উৎসব হোক বা না হোক গোড়ালীতে ভ্যাসেলিন বা পমেট মেখে ঘুমাতে গেলে সকালে পা নিশ্চিত হবে তেমন যা দেখে যে কেউ গাইবে—নিটোল পায়ে রিনিক ঝিনিক পায়েল খানি বাজে!

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
2 জন সক্রিয় সদস্য
0 জন নিবন্ধিত সদস্য 2 জন অতিথি
আজকে পরিদর্শন : 7683
...