প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করুন নিবন্ধন বা রেজিষ্ট্রেশন ছাড়াই
+2 টি ভোট
"পদার্থ বিজ্ঞান বই" বিভাগে করেছেন (1.1k পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (3k পয়েন্ট)
আলো কিভাবে সৃষ্টি হয় বা উৎপত্তি হয় তা নিয়া বিজ্ঞানীদের গবেষনার শেষ নাই। আজও পর্যন্ত প্রমাণিত কোন তথ্য নাই। কিন্তু বিজ্ঞানীরা আজ পর্যন্ত গবেষনা করে যতটুকু জানতে পেরেছেন তার উপর ভিক্তি করে বেশ কিছু থিউরি বা মডেল বা ব্যাখ্যা প্রকাশিত হয়েছে যা অত্যান্ত বিশাল এবং এক এক নীতি আরেকটির উপর নির্ভরশীল। যেহেতু অষ্টম শ্রেণীর জন্য প্রয়োজন তাই সেই উপযোগী উত্তর দিতেছি।

আলো হচ্ছে এক প্রকার শক্তি যা বস্তু থেকে নির্গত হয়। কিন্তু স্বাভাবিক ভাবে সকল বস্তু থেকে নির্গত হয়না।

অতিগ্রহনযোগ্য দুটি আলোক তত্ত্ব হচ্ছে নিউটনের কনাতত্ত্ব আর হাইগেন এর তরঙ্গতত্ত। কনাতত্ত্ব অনুযায়ী আলো হচ্ছে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কনা। আর এটি সত্যি হলে আলোর ভরও থাকবে। যেহেতু আলোর গতি আছে তাই ধরা যায় ভরবেগও রয়েছে। কিন্তু আলোর কনার ভরকে আপেক্ষিকভাবে ধরা হয়না।

অন্যদিকে আমরা জানি বস্তু ইলেক্ট্রন, প্রোটন, নিউট্রন দ্বারা গঠিত। বোর পরমানু মডেল অনুসারে পরমানুর ভেতর ইলেক্ট্রন গুলো শক্তি শোষন করে উপরের স্তরে যেতে পারে। আর বিকিরন করে নিচের স্তরে আসে। ফলে বাইরের শক্তির প্রভাবে ইলেক্ট্রন গুলো উত্তেজিত হয়ে কাপতে থাকে, তখন এটির  অতি দ্রুত গতিপ্রাপ্ত হয় ফলে গতিপথে অতিরিক্ত শক্তি বিকিরন করে দেয়। ম্যাক্স প্লাঙ্কের মতে এই শক্তি নিরবিচ্ছিন্ন না হয়ে বরং ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্যাকেট আকারে নির্গত হয়। একে ফোটন বলে। এর প্রমানিত রুপ হচ্ছে আলোক ফটোতড়িৎক্রিয়া। 

যেহেতু ফোটন হচ্ছে শক্তির প্যাকেট তাই এটি কনার নেয় নিক্ষিপ্ত হয়ে বেরিয়ে আসে। আর এই শক্তির  বিকিরন হয় তরঙ্গাকারে। কারন ইলেক্ট্রনের তরঙ্গ প্রকৃতিও রয়েছে। 

এই বিকিরিত শক্তি বিভিন্ন তরঙ্গদৈর্ঘ্যের হয়ে ছড়ায়। আলোক বর্ণালীর ৪ স্পেক্ট্রামের বেশি তরঙ্গের বিকিরন মানুষের চোখে দর্শন অনুভুতি জাগায় বলে আমরা আলো হিসাবে দেখি। একে দৃশ্যমান আলো বলে।

পরমানুতে বিভিন্ন বিক্রিয়ার ফলে যেমন সূর্যে হাইড্রোজেন ও হিলিয়ামের ফিউশন বিক্রিয়ায় ইলেক্ট্রন এই অতিরিক্ত শক্তি পেয়ে উত্তেজিত হয়ে গতিপ্রাপ্ত হয় ও কাপতে থাকে ফলে তা ফোটন বিকিরন হিসাবে আলো নির্গত করে।

বৈদ্যুতিক বালবে এই ধরনের বিক্রিয়া না হলেও বাইরের বিদ্যুত উৎস থেকে বিদ্যুত তথা ইলেক্ট্রনের প্রবাহ দিয়ে ইলেক্ট্রন সঙ্ঘর্ষ ঘটিয়ে অতিরিক্ত শক্তি প্রাপ্তির ব্যবস্থা করা হয় বলে সেখানে ইলেক্ট্রনের এই গতিময় উত্তেজিত অবস্থা থেকে ফোটন তথা আলো বেরিয়ে আসে। 

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+2 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
09 মে 2020 "পদার্থ বিজ্ঞান বই" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Emu Akter (52 পয়েন্ট)

10 Online Users
0 Member 10 Guest
Today Visits : 4391
Yesterday Visits : 6520
Total Visits : 3715097

বয়স গণনা করুন





     বয়স : 0 বছর     
            0 মাস
            1 দিন
...